You are here
Home > জাতীয় > বাট দিয়ে পিটেয়ে ষাটোর্ধ্ব বাংলাদেশী বৃদ্ধের হাত-পা ভেঙে দিয়েছে -বিএসএফ

বাট দিয়ে পিটেয়ে ষাটোর্ধ্ব বাংলাদেশী বৃদ্ধের হাত-পা ভেঙে দিয়েছে -বিএসএফ

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম সীমান্তে রাইফেলের বাট দিয়ে পিটেয়ে ষাটোর্ধ্ব বাংলাদেশী বৃদ্ধের হাত-পা ভেঙে দিয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিএসএফ।

 মঙ্গলবার রাতে গুরতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করেছে উপজেলার আঙ্গরপোতা বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা।

ওই বৃদ্ধের নাম মুরারী মোহন গুপ্ত। তিনি ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার সাভার গ্রামের দেবেন্দ্র নাথের ছেলে।

বিজিবি ও সীমান্ত সূত্রে জানা গেছে, মুরারী মোহন গুপ্ত ভারতের কুচবিহারে বিয়ে করেছেন। তিনি প্রায় সময় পাসপোর্ট ভিসার মাধ্যমে লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী স্থলবন্দর হয়ে ভারতে যাতায়াত করতেন।

তবে গত বছর ১৮ ডিসেম্বর তার স্ত্রী পাসপোর্টের মাধ্যমে বুড়িমারী হয়ে ভারতে যান। আর মুরারী মোহন গুপ্তের ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ায় তিনি অবৈধভাবে দালালের মাধ্যমে বুড়িমারীর ওপারে থাকা চেংরাবান্দ সীমান্ত পাড়ি দেন।

মঙ্গলবার দিনের বেলা তার স্ত্রী নিয়ম মাফিক পাসপোর্টের মাধ্যমে বুড়িমারী হয়ে দেশে ফিরেন। কিন্তু শ্রী মুরারী মোহন গুপ্ত ভারতীয় দালালের মাধ্যমে অবৈধভাবে আঙ্গোরপোতা সীমান্ত পাড়ি দিয়ে দেশে ঢোকার চেষ্টা করেন।

এদিন রাত সাড়ে ৯টার দিকে ওই সীমান্তের ১০/৩-এস পিলারের কাছে ফকিরপাড়া নামক স্থানে ভারতের ২২ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের ওমর ক্যাম্পের টহল দল তাকে আটক করে। এসময় ভারতীয় দালালরা পালিয়ে গেলেও মুরারী মোহন গুপ্তকে রাইফেলের বাট দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে বিএসএফ। এতে তার ডান হাত ও বাম পা ভেঙে যায়।

পরে ওই বৃদ্ধকে মৃত ভেবে সীমান্তেই ফেলে রেখে যায় বিএসএফ সদস্যরা। পরে স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে পাটগ্রামের আঙ্গরপোতা বিওপির টহল দল তাকে উদ্ধার করে।

তাকে আশংকাজনক অবস্থায় প্রথমে পাটগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য বুধবার সকালে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে গুরতর আহত ওই বাংলাদেশীর নামে পাটগ্রাম থানায় মামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে লালমনিরহাট ১৫ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) পরিচালক লে. কর্নেল বজলুর রহমান হায়তী।

বুধবার দুপুরে সাংবাদিকদের দেয়া এক প্রেস নোটে তিনি বলেন, বিএসএফের পিটুনিতে মুরারী মোহন গুপ্তের ডান হাত ও বাম পা ভেঙে যায় এবং কপালে আঘাত প্রাপ্ত হয়।

বিজিবির পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে ভারতীয় ২২ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের নিকট জোরালো প্রতিবাদলিপি পাঠানো হয়েছে বলেও প্রেসনোটে উল্লেখ করেন তিনি।

পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ডা. রফিকুল ইসলাম বলেন,  আহত ওই ব্যক্তিকে হাত ও পা ভাঙা অবস্থায় নিয়ে আসা হয়। তিনি শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত পেয়েছেন।

তিনি জানান, ধারণা করা হচ্ছে ওই ব্যক্তির পাজরের দু-তিনটি হাড় ভেঙে গেছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পাটগ্রাম থানার ওসি অবনি শংকর কর বলেন, আহত বৃদ্ধকে পাটগ্রাম থেকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর পুলিশ প্রহরায় চিকিৎসা চলছে।

Similar Articles

Leave a Reply

Top