You are here
Home > আন্তর্জাতিক > মেলানিয়া, আপনার স্কার্ফ কোথায়!

মেলানিয়া, আপনার স্কার্ফ কোথায়!

পুরোটাই কালো। যাকে বলে মিশকালো পোষাকে ঢাকা। আর পায়ের দিকটা ঢলঢলে ট্রাউজার্সের মতো। সবটা মিলিয়ে আদতে একটা জাম্পস্যুট। গলায় মোটা শেকলের মতো সোনার হার। আর কোমরে পুলিশের থেকেও বেশ কয়েক গুণ চওড়া বেল্ট। সোনালি শুধু নয়, খাঁটি সোনার!

আজ এই পোশাকেই সৌদি দেশে এলেন মার্কিন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসে আসার পর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এটাই প্রথম বিদেশ সফর। সৌদি আরব দিয়ে শুরু করে পরে প্যালেস্টাইন, ইজরাইল, বেলজিয়াম মিলিয়ে মোট আট দিনের। তা-ও কি না সপরিবার! লাল কার্পেট বিছিয়ে তাই তৈরিই ছিল রিয়াদেরর বিমানবন্দর। কিন্তু মেলানিয়া মাটিতে পা রাখতেই প্রশ্নের ঝড় বয়ে গেল সোশ্যাল মিডিয়ায়। এ কী, মাথায় স্কার্ফ কোথায়? তাঁর সোনালি চুল যে দিব্যি উড়ছে হাওয়ায়! প্রথা মেনেই কালোয় সেজেছেন ট্রাম্প-পত্নী। কিন্তু স্কার্ফটা কি ভুলে গেলেন? নাকি ইচ্ছে করেই!

নেটিজেনদের মনে পড়ে যাচ্ছে বছর দু’য়েক আগেকার একটি ঘটনাও। সৌদি রাজা আবদুল্লার মৃত্যুর পর সেবার রিয়াদে এসেছিলেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। সস্ত্রীক। স্কার্ফে মাথা ঢাকেননি মিশেল ওবামা। তা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ার ভিড়ে মিশে ওবামা-দম্পতিকে বিদ্ধ করেছিলেন আজকের প্রেসিডেন্টই। ভোটের মাঠে নামতে তখনও মাস ছ’য়েক বাকি ট্রাম্পের। ট্রাম্প টাওয়ার থেকেই ২০১৫-র জানুয়ারিতে তিনি টুইট করেন, ‘‘স্কার্ফ ছাড়া সৌদি আরবে গিয়ে সে দেশের মানুষকেই অপমান করেছেন ফার্স্ট লেডি ওবামা।’’

এমন ‘প্রথা-ভাঙার’ জেরে শত্রু বাড়তে পারে বলেও ইঙ্গিত দিয়েছিলেন তিনি। আজ অবশ্য ট্রাম্প রিয়াদে নেমে সদর্পেই ‘স্কার্ফ-হীন’ মেলানিয়াকে নিয়ে হাত মিলিয়ে এলেন সৌদি রাজার সঙ্গে। ফুলহাতা সাদা-কালো পোশাকে হাঁটতে দেখা গেল মেয়ে ইভানকাকে। চোখ-ঢাকা সানগ্লাসে। কিন্তু মায়ের মতো ‘আবায়া’ বা স্কার্ফ ছিল না তাঁরও!
বোরখা না পরে টুইটারে ছবি পোস্টের ‘অপরাধে’ সম্প্রতি এক সৌদি মহিলাকে হাজতে পাঠিয়েছে প্রশাসন। মহিলারা রাস্তায় আপাদমস্তক ঢেকে বেরোবেন— এমনটাই রেওয়াজ। কিন্তু বিদেশিদের ক্ষেত্রেও কি তাই! অতিথিদের জন্য এমন কোনও পোশাকবিধি নেই বলেই দাবি প্রশাসনের।

তাই স্কার্ফ না পরেই সম্প্রতি সৌদি সফরে এসেছিলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে, জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল। মার্কিন বিদেশসচিব থাকাকালীন হিলারি ক্লিন্টনও রিয়াদে এসেছেন, স্কার্ফ ছাড়াই। কিছুটা ব্যতিক্রম প্রাক্তন মার্কিন ফার্স্ট লেডি লরা বুশ। জর্জ ডব্লিউ বুশের সঙ্গে আসার পর এক বার তাঁর মাথায় স্কার্ফ দেখা গিয়েছিল। বাধ্য হয়ে নয়, নিছক সৌজন্যের স্বার্থেই। তবু এবার মেলানিয়া কী পরে আসবেন, তা নিয়ে জল্পনা চলছিলই। যা মেটাতে আসরে নামে সৌদি বিদেশ মন্ত্রক। জানানো হয়, ফার্স্ট লেডির পোশাক নিয়ে কোনও নিষেধ নেই। কিন্তু ট্রাম্প নিজেই যে স্কার্ফ-খোঁচায় বিদ্ধ করেছিলেন আগের ওবামা-পত্নীকে! প্রশ্ন তাই উঠছেই।

ট্রাম্পের নির্দেশে এফবিআই-ডিরেক্টর জেমস কোমির ছাঁটাই নিয়ে এখনও হাওয়া গরম যুক্তরাষ্ট্রে। মার্কিন ভোটে রুশ হস্তক্ষেপ নিয়েও থামেনি ঝড়। এই পরিস্থিতিতে আট দিনের জন্য দেশছাড়া হয়ে প্রশ্নের মুখে খোদ প্রেসিডেন্টও।

Similar Articles

Leave a Reply

Top