You are here
Home > অপরাধ > বান্দরবানের লামায় প্রেমিকের ডাকে সাড়া দিয়ে ইজ্জত হারাল প্রেমিকা!

বান্দরবানের লামায় প্রেমিকের ডাকে সাড়া দিয়ে ইজ্জত হারাল প্রেমিকা!

বান্দরবানের লামায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মোবাইলে ডেকে এনে এক কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে দুই বন্ধু। গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৯টায় লামা-চকরিয়া সড়কের মিরিঞ্জা পর্যটন সংলগ্ন সাউথ স্কাই রাবার বাগানে এই ঘটনা ঘটে।

ধর্ষক মো রাসেল দেওয়ান (৩২) লামার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের গাজীপাড়ার মৃত সাইফুল পিসির ছেলে ও মাহতাব উদ্দিন সুমন (৩০) পার্শ্ববর্তী চকরিয়া উপজেলার বার আউলিয়া নগরের জিদ্দা বাজার এলাকার মাষ্টার সারোয়ার কামালের ছেলে।পুলিশ ১নং আসামী মোঃ রাসেল দেওয়ানকে গতকাল বুধবার দুপুরে তার বাড়ী রুপসীপাড়া থেকে আটক করেছে।

ভিকটিমের খালা ও মামলার বাদী রোকেয়া বেগম বলেন, মেয়েটির বাবা বাঁক প্রতিবন্ধী ও মা হাবাগোবা। পরিবারের অভাবে কারণে সে চট্টগ্রামে গার্মেন্সে কাজ করে। ধর্ষক রাসেল দেওয়ানের লামা বাজার স্টার শপিং কমপ্লেক্সে মোবাইলের দোকান রয়েছে। গত ৬/৭ মাস আগে আমার বোনের মেয়ের ধর্ষকের দোকানে মোবাইল মেরামত করতে যায়। এসময় রাসেল এর সাথে পরিচয়। ধীরে ধীরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। ২৩ মে ২০১৭ইং মঙ্গলবার রাসেল তাকে চট্টগ্রাম থেকে ফোনে ডেকে নিয়ে আসে।

মেয়েটি চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারের চকরিয়ায় পৌছালে রাসেলের বন্ধু মাহতাব উদ্দিন সুমন তাকে রিসিভ করে। ২জন মিলে মেয়েটিকে মোটর সাইকেলে তুলে লামার উদ্দেশ্যে নিয়ে আসে। এসময় লামা-চকয়িরা সড়কের মিরিঞ্জা পর্যটন সংলগ্ন সাউথ স্কাই রাবার বাগানে রাত ৯টায় প্রথমে রাসেল ধর্ষণ করে পরবর্তীতে এই ঘটনা মানুষকে বলে দেবে এমন ভয়ভীতি দেখিয়ে সুমন ধর্ষণ করে। খবর পেয়ে আমরা গিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করি।

লামা থানার অফিসার ইনচার্জ ও মামলার তদন্তকারী অফিসার আনোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এই বিষয়ে ভিকটিমের খালা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে লামা থানায় মামলা দায়ের করে। মামলা নং- ১১, তারিখ- ২৪ মে ২০১ইং। মেয়েটির ২২ ধারায় জবানবন্ধী রেকর্ডের জন্য বুধবার বিকেলে লামা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Similar Articles

Leave a Reply

Top