You are here
Home > খেলা > মেসি-রোকুজ্জোর বিয়ে: কত ব্যয় হলো? কোথায় যাবেন হানিমুনে?

মেসি-রোকুজ্জোর বিয়ে: কত ব্যয় হলো? কোথায় যাবেন হানিমুনে?

ফুটবল-শোবিজ তারকাদের ঝলমলে উপস্থিতি, ক্যামেরার ফ্ল্যাশের ঝলকানি, ননস্টপ বিনোদন, মুখরোচক সব খাবার, বর কনের আলিঙ্গন; এসবই রোজারিওর অভিজাত সিটি সেন্টার হোটেল কমপ্লেক্সে  মেসি-রোকুজ্জোর বিবাহ মুহূর্তের টুকরো কোলাজ।

এসব দৃশ্য সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর আর্জেন্টিনাসহ গোটা বিশ্বে শনিবার সকাল থেকে ঘুরছে একটা প্রশ্ন-এই বিয়ে কি বছরের সেরা? নাকি শতাব্দীর সেরা? আর্জেন্টিনা প্রচারমাধ্যম যদিও এই বিয়ের অনুষ্ঠানকে ‘শতাব্দীর সেরা বিয়ে’র তকমা দিয়ে ফেলেছে। আসুন দেখে নেওয়া যাক মেসি-রোকুজ্জোর বিয়ের ঘটনা প্রবাহ:

প্রথম দেখার স্মৃতিচারণ: মেসির ৫ বছর বয়সে প্রিয় বন্ধু ছিল লুকাস স্ক্যাগিলা। রোকুজ্জো তার সম্পর্কে বোন। ১০ বছর বয়স পর্যন্ত রোজারিওর রাস্তায় সাইকেলে লিও, লুকা আর আন্তো এই তিনজন ঘুরে বেড়াতেন সাইকেলে। বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে এমনই স্মৃতিচারণ মেসির প্রতিবেশীদের।

রোসা ক্লারা: স্পেনের বহুখ্যাত এই নারী ফ্যাশন ডিজাইনার বিখ্যাত তার ‘ব্রাইডাল কালেকশনস’এ। অতীতে স্পেনের রানি সোফিয়া, হলিউড অভিনেত্রী ইভা লংগোরিয়ার মতো সেলিব্রিটিরা তার বানানো ‘ওয়েডিং গাউন’ পরে বিয়ে করতে গিয়েছেন। এ বার মেসির বউয়ের গায়ে উঠল রোসা ক্লারার ডিজাইন করা পোশাক। রোকুজ্জোর মা ও বোনও একই ডিজাইনারের পোশাক পরেছিলেন।

তারকার আলোয় ঝলমলে বিয়ে: বিয়েতে ব্রাজিল সুপারস্টার নেইমার, উরুগুয়ের তারকা সুয়ারেস, জাভিরা এসেছিলেন। এসেছিলেন অনেক ফুটবলারের স্ত্রী-পরিবার। স্ত্রী পপস্টার শাকিরাকে নিয়ে উপস্থিত ছিলেন জেরার পিকেও। ছিলেন সস্ত্রীক কার্লেস পুয়োল। স্যামুয়েল ইতো আর দানি আলভেজরা ছিলেন। আর আর্জেন্টিনার ফুটবলারদের মধ্যে সস্ত্রীক আগেরো, লাভেজ্জি, ডি’মারিয়া, মাসচেরানোরা বিয়ের আসর মাতিয়ে রাখলেন নেচে গেয়ে। সুয়ারেসের সঙ্গে ছিলেন তার স্ত্রী সোফিয়া বালবি। আন্তোনেল্লার সঙ্গে সোফিয়া বার্সেলোনায় বিলাসবহুল ডিজাইনার জুতোর ব্যবসা করেন। আর্জেন্টিনা ও স্পেনের বেশ কয়েকজন অভিনেতা, অভিনেত্রী, গায়িক-গায়িকা, সুপার মডেলরাও ছিলেন অনুষ্ঠানে।

অতিথিদের জন্য: মেসি-রোকুজ্জো কোনো উপহার গ্রহণ করেননি। কিন্তু অতিথিদের জন্য রাখা ছিল বিশেষ স্মারক বাক্স। সে বাক্সে ছিল ফ্যামিগলিয়া বিয়াঞ্চির ওয়াইন। ছিল জনপ্রিয় ডেজার্ট, পারফিউমও।

আরও স্মার্ট ও ঝকঝকে: আর্মানির থ্রি পিস স্যুট পরা মেসিকে নাকি অন্যদিনের চেয়েও স্মার্ট ও ঝকঝকে লেগেছে। দাবি অনুষ্ঠানে উপস্থিত আর্জেন্টাইন মিডিয়ার। মেসির পরনে ছিল সিলভার গ্রে শার্ট ও টাই। বুকে আটকানো সাদা গোলাপ।

বিয়ের মুহূর্ত: ঘড়ির কাঁটায় রাত ৯ টা বাজতেই সাদা গাউন পরা রোকুজ্জোর হাত ধরে লাল কার্পেটে আবির্ভাব মেসির। ফটোসেশনের পর হলঘরে ঢুকে পড়েন দুজনে। যেখানে মিডিয়া ছিল না। সেই ঘরে ছিলেন ভিআইপি অতিথি ও ম্যারেজ রেজিস্ট্রার গঞ্জালো ক্যারিও। তিনিই দুজনকে ধর্মীয় এবং আইনগত ভাবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ করেন।

গাইলেন আবেল পিন্টো: রোকুজ্জোর প্রিয় গায়ক আবেল পিন্টো। ৩৩ বছর বয়সী এই শিল্পী মেসি-রোকুজ্জোর বিবাহ-চুম্বনের আগে সুরের লহরী তুললেন। মেসি-দম্পতির সঙ্গে অতিথিরাও কোরাসে গলা মেলালেন ‘আই লাভ ইউ উইদাউট বিগিনিং অর এন্ড’ গানে। যে গান শেষ হতেই রোকুজ্জোকে ‘লিপ-লক’ করতে এগিয়ে যান মেসি।

বড় ম্যাচ: রোকুজ্জো আর তার শাশুড়ি সেলিয়ার মধ্যে ঠান্ডা লড়াই থাকলেও অনুষ্ঠানে স্বামী জর্জে ও মেয়ে মারিয়াকে নিয়ে উপস্থিত ছিলেন মেসির মা। মেসির বাবা জর্জে হাসিমুখে মিডিয়াকে বলে যান, ‘এটা লিওর জীবনের সবচেয়ে বড় ম্যাচ। ‘

বিপুল পরিমাণ ব্যায়: মেসি-রোকুজ্জোর বিয়ের ম্যারেজ প্ল্যানার মারিয়ানা ফিলিপ। বিয়ের খরচ ২.৫ বিলিয়ন ডলার। ফিলিপ জানিয়েছেন, খাওয়া দাওয়া, অতিথি আপ্যায়ন, হোটেলের ঘর ভাড়ার চেয়েও দামি ফুল দিয়ে বিবাহ বাসর সাজানো, উৎসবমুখর পরিবেশ, চোখ ধাঁধানো আলোকসজ্জা এবং ইন্টিরিয়র ডেকরেশনের কারণে এত পরিমাণ ব্যায় হয়েছে। এসব কারণেই মায়াবী পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছিল বিয়ের অনুষ্ঠানে।

মধুচন্দ্রিমা: বিয়ে শেষ। এ বার দুই পুত্র থিয়াগো ও মাতেওকে নিয়ে অ্যান্টিগা উড়ে যাবেন মেসি-রোকুজ্জো। সেখানেই হবে দুজনের মধুচন্দ্রিমা।

Similar Articles

Leave a Reply

Top