You are here
Home > আইসিটি > রোগীদের খাবারের স্বাদ দিতে সক্ষম চামচ আবিষ্কার

রোগীদের খাবারের স্বাদ দিতে সক্ষম চামচ আবিষ্কার

খাওয়ার মজা লুকিয়ে আছে স্বাদের মাঝে। কিন্তু ডায়াবেটিস ও হার্টের এমন অনেক রোগী রয়েছেন যারা চাইলেও মিষ্টি বা লবণ খেতে পারেন না।

অনেকে আবার অতিরিক্ত ওজনের ভয়েও মিষ্টি খেতে পারেন না। তবে লবণ, চিনি বা টক ছাড়া কিছু খাবারের স্বাদও কেমন যেন ফিঁকে হয়ে যায়।

বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়েই মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবির নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটির বিশিষ্ট গবেষক নিমেশা রণসিংঘের গবেষকদল উদ্ভাবন করেছেন এক বিশেষ ধরনের ইলেকট্রিক চামচ। যে চামচে খেলে বিস্বাদ খাবারও মুখে সুস্বাদু লাগবে। অর্থাৎ, এর মাধ্যমে ইলেকট্রিক কারেন্ট ও ফ্রিকোয়েন্সিতে পরিবর্তন ঘটিয়ে মুখের স্বাদ গ্রহণ অনুভূতি বাড়ানো যাবে।

ফলে খাবারে শর্করা অথবা লবণের ভাগ কম থাকলেও সঠিক মাত্রায় স্বাদ পেতে উপযোগী হবে এ চামচ।

যদিও চামচটি ‘ডিজিটাল টেস্ট স্টিমুলেটর’ হিসেবেই মুখ্য কাজ করে। তবে স্বাদের পাশাপাশি সেই খাবারের রং, ঘ্রাণ ও রূপ প্রতিটি বিষয়কে মাথায় রেখে তৈরি করা হয়েছে এটি।

সম্প্রতি বেশ কিছু মানুষের মধ্যে চামচটির ব্যবহার করিয়েছেন ওই গবেষকদল। সে সমীক্ষা থেকে জানা যায়, এ চামচ ব্যবহার করে তারা বিভিন্ন খাবারের ৪০-৮৩ শতাংশ স্বাদ পেতে সক্ষম। তবে এদের মধ্যে আবার কিছু আছেন চামচটির মেটাল ইলেক্ট্রোডের স্বাদ বেশি পেয়েছেন যার সমাধান শিগগিরই সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন গবেষকদল। একই সঙ্গে খাবারের স্বাদবর্ধক বিভিন্ন প্রকার ফ্লেভার যুক্ত করে চামচটির গুণমান আরও বাড়ানো হবে বলে তারা জানিয়েছেন।

শুরুতে আমেরিকার ফ্লোরিডায় অনুষ্ঠিত এসিএম মাল্টিমিডিয়া কনফারেন্সে এলেক্ট্রিক চামচটির পরীক্ষিত ব্যবহার প্রদর্শিত হয়েছে। ভবিষ্যতে ডায়াবেটিস ও হার্টের রোগীদের সুস্বাদু খাবার গ্রহণের সুরাহা হবে এ চামচ- এমনটাই আশা করেছেন সংশ্লিষ্ট গবেষক মহল।

Similar Articles

Leave a Reply

Top