You are here
Home > রাজনীতি > ‘তুমি শুধু প্রধান বিচারপতির পদ ছাড়বা না, এই দেশ ছাড়তে হবে’-মির্জা ফখরুল

‘তুমি শুধু প্রধান বিচারপতির পদ ছাড়বা না, এই দেশ ছাড়তে হবে’-মির্জা ফখরুল

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরীর বক্তব্য আদালত অবমাননার শামিল বলে দাবি করে তার বিচার চেয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রোববার (২৭ আগস্ট) সকালে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৪১তম মৃত্যুবার্ষিকীতে তার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের কাছে এই মন্তব্য করেন ফখরুল।

শনিবার রাজধানীতে এক আলোচনায় শামসুদ্দিন চৌধুরী অভিযোগ করেন, ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে দেয়া রায় প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার লেখা নয়। প্রধান বিচারপতিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘তুমি শুধু প্রধান বিচারপতির পদ ছাড়বা না, এই দেশ ছাড়তে হবে।’

ফখরুল বলেন, ‘ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে মন্তব্য করা সংবিধানের লঙ্ঘন। এ রায় নিয়ে বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক যে বক্তব্য দিয়েছেন তা আদালত অবমাননার শামিল। তার বিচার হওয়া উচিত।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘শামসুদ্দিন চৌধুরী সাহেব কোন যোগ্যতায় বিচারপতি পদে নিয়োগ পেয়েছিলেন, তা আমার জানা নাই। তার বিচারপতি হওয়ার যোগ্যতার ব্যাপারটি দেশের জনগণ বিবেচনা করবেন। আমি শুধু একটি কথা বলতে চাই, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় আপিল বিভাগের সকলের সর্বসম্মতিক্রমে একটি রায়। এই বিষয়ে যারা প্রশ্ন তুলেন তারা বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেন, বিচার বিভাগের যে কর্তৃত্ব, জুডিশিয়ারির যে আলাদা ক্ষমতা, সেই ক্ষমতা ওপরে তারা প্রশ্ন তুলেন, তারা সংবিধান লঙ্ঘন করেন।’

প্রতিদিন আওয়ামী লীগের মন্ত্রী, এমপি, নেতাকর্মী থেকে শুরু করে শুভাকাঙ্ক্ষীরা আদালতের বিরুদ্ধে ‘অশালীন’ বক্তব্য দিয়ে আদালতকে অসম্মান করছে বলে দাবি করেন ফখরুল।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বিএনপি তো বলেন, ‘কবি নজরুল ইসলাম তাঁর সাহিত্যকর্মের মাধ্যমে মানবতার কথা প্রকাশ করেছেন, অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছেন।’

‘নজরুল ইসলাম আমাদের জাতীয় জীবনে এক অন্তহীন প্রেরণার উৎস। তাঁর রচনা আমাদেরকে স্বদেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধ করে। সমাজে শান্তি ও সাম্য প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তাঁর স্বপ্ন পূরণে আমাদেরকে আত্মনিয়োগ করতে হবে।’

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, যুগ্ম-মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, সহ-দপ্তর সম্পাদক মুনির হোসেন, মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশারসহ প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

Similar Articles

Leave a Reply

Top